সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কিরের লাশ দাফন সম্পন্ন..

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কিরের লাশ দাফন করা হয়েছে। এর আগে রবিবার রাত ৮টার দিকে লাশ ঢাকা থেকে তার বাড়িতে এসে পৌঁছে।

রাত সাড়ে ৮টায় চরফকিরা সৈয়দিয়া হাফেজ আজগর আলী দাখিল মাদ্রাসা মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মুজাক্কিরকে দাফন করা হয়।

নিহত বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির চরফকিরা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের নোয়াব আলী মাস্টারের ছেলে। চার বোন ও তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার ছোট।

জানাজা নামাজে উপস্থিত ছিলেন- কোম্পানীগঞ্জের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল, আওয়ামী লীগ নেতা আলাবক্স তাহের টিটু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান আরমান, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান আদনান, নিহতের আত্মীয় স্বজন ও স্থানীয় লোকজন। জানাজা পরিচালনা করেন নিহতের বড় ভাই নূর উদ্দিন মোহাদ্দেছ।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বিকালে উপজেলার চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এসময় সংঘর্ষের ছবি ও ভিডিও ধারণ করতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হন মুজাক্কির। পরে স্থানীয় লোকজন প্রথমে তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে লাইফ সাপোর্টে শনিবার রাত ১০টা ৪৫মিনিটে মারা যান তিনি। মুজাক্কির অনলাইন নিউজ পোর্টাল বার্তা বাজারের নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি ছিলেন।

আর্কাইভ