নোয়াখালীর মাইজদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মানবাধিকার কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা, আটক-১

মুলতানুর রহমান মান্না, নোয়াখালী :

নোয়াখালী পৌরসভার মাইজদীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক মানবাধিকার কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বোন, ভগ্নিপতি ও ভাগিনারা।

এ ঘটনায় সুধারাম থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহালের জন্যে নোয়াখালী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে।
মামলার বাদী মৃতের প্রতিবন্ধী পুত্র নুরুল ইসলাম জানান, মৃত মানবাধিকার কমর্ী বেলায়েত হোসেনের মালিকীয় ও ভোগ দখলীয় সম্পত্তি দখলে নিতে দীর্ঘদিন ধরে বোন মনছুরা বেগম, ভগ্নিপতি আবদুল খালেক, ভাগিনা সাইফুল ইসরাম ও মাসুদরা চেষ্টা করে আসছিল।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে তারা পূর্বপরিকল্পিতভাবে মানবাধিকার কর্মী বেলায়েত হোসেনের ঘরের পাশের নাল জমি দখল করে কথিত গরু ঘর করার চেষ্টা করে। এ সময় বেলায়েত ও তার প্রতিবন্ধী পুত্র বাধা প্রদান করলে তারা লাঠি-শোঠা নিয়ে বেলাায়ত ও তার পুত্রকে এলোপাতাড়ি মারধোর করে। ঘটনাকালে বেলায়েত ঘটনাস্থলেই অজ্ঞান হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন দৌড়ে আসে। তারা এ সময় বেলায়েতকে ২৫০শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্মরত চিকিৎসকেরা তাকে মৃৃত বলে ঘোষণা করেন।

প্রতিপক্ষরা এ ঘটনার আগেও বিভিন্ন সময়ে বেলায়েতকে জমি দখলের চেষ্টায় মারধোর করেছে বলে অভিযোগে করেন পরিবারের লোকজন।

এ বিষয়ে সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার্ (ওসি) নবির হোসেন বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছি। সুরতহাল রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত বলা যাবে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আবদুল খালেককে আটক করেছে।