কোম্পানীগঞ্জে প্রতিদ্বন্ধি দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত-২

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ৫নং চরফকিরা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন চলাকালে যুবলীগের কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে প্রতিদ্বন্ধি দু’গ্রুপের মধ্যে সংর্ঘ্ষ হয়েছে। বুধবার(আজ) বিকাল সাড়ে ৪টায় সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে লিপ্ত দলীয় নেতাকর্মীদের
নিবৃত করতে গিয়ে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতিসহ ২ জন আহত হয়েছে। হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায়, আজ বিকাল ৪টায় উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি হানিফ পাটওয়ারীর সভাপতিত্বে ও প্রধান অতিথি হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা আবু নাছেরের উপস্থিতিতে আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে শ্রমিকলীগ ও কৃষক লীগের কমিটি ঘোষণার পর যুবলীগের কমিটি ঘোষণা করতে গিয়ে গন্ডগোলের সৃষ্টি হয়।

সূত্রমতে. যুবলীগের সভাপতি পদে ফখরুল ইসলাম রুবেল ও কামাল উদ্দিন প্রার্থী ছিল এবং সম্পাদক পদে আনোয়ার হোসেন বাদশা ও সাদ্দাম হোসেন প্রার্থী ছিল। নেতৃবৃন্দ ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি পদে ফখরুল ইসলাম রুবেল ও সম্পাদক পদে আনোয়ার হোসেন বাদশার নাম ঘোষণা করার সাথে সাথে অপর দুই প্রার্থী কামাল উদ্দিন ও সাদ্দাম হোসেনের সমর্থকরা হৈচৈ শুরু করে। একপর্যায়ে নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে ফখরুল ইসলাম রুবেল ও আনোয়ার হোসেন বাদশার সমর্থকরা হাতাহাতি ও মারামারিতে লিপ্ত হয়। এসময় ৯ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি মজিবল হক মেম্বার তাদেরকে নিবৃত করতে চাইলে ফখরুল ইসলাম রুবেলের ছোট ভাই মিলনের(৩২) নেতৃত্বে জুলুম বাদশা(২৭), ছিদ্দিক(৫৫) ও আনোয়ার হোসেন পাখি(২২) তার উপর হামলা করে। এসময় মজিবল হকের ছোট ভাই এনামুল হক এগিয়ে এলে তার উপরও হামলা করা হয়। হামলায় মজিবল হক(৫৭) ও এনামুল হক(৩০) আহত হয়। আহত মজিবল হক মেম্বারকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়েছে এবং এনামুল হককে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে আহত মজিবল হক মেম্বার জানান, মিলন এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক সেবী। পাশাপাশি সে এলাকায় নানান অসামাজিক কার্যকলাপের সাথে জড়িত। ইতিপূর্বে আমি তার এসকল কার্যকলাপের প্রতিবাদ ও বাধা দেয়ায় সে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সুযোগ বুঝে আজ আমার উপর এ হামলা করেছে। হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরে প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও তিনি জানান।

ঘটনার বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো: আরিফুর রহমান জানান, মৌখিকভাবে বিষয়টি আমাকে জানিয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আর্কাইভ