ওবায়দুল কাদের ও প্রশাসনকে বিতর্কিত করার জন্যই মওদুদ আহমদের এ অভিযোগ –উপজেলা আ’লীগ

প্রশান্ত সুভাষ চন্দ :
===========
নির্বাচনী প্রচারনায় বাধা দেয়া হচ্ছে, প্রশাসন ব্যবস্থা নিচ্ছে না, ভোটারদেরকে হুমকী দেয়া হচ্ছে, বোমা বাজি করে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করা হচ্ছে বিএনপির প্রার্থী ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদের এমন অভিযোগ উপজেলা আ’লীগের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অস্বীকার করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়েছে, কোম্পানীগঞ্জ ও কবিরহাট উপজেলার জনপ্রিয় প্রার্থী ওবায়দুল কাদেরসহ প্রশাসনকে বিতর্কিত করার জন্যই জনবিচ্ছিন্ন মওদুদ আহমদের এ অভিযোগ। আজ বিকাল ৪টায় উপজেলা আ’লীগ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলীয়ভাবে এ বক্তব্য দেয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল বলেন, ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদের সকল অভিযোগ ভিত্তিহীন, অসত্য ও কল্পনা প্রসূত। নির্বাচনে সাধারণ ভোটারদের সাড়া না পেয়ে তিনি আজ অবান্তর বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বিএনপি দলীয় নেতাকর্মীদের উপর হামলার বিষয়ে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, এমন একটা ঘটনা তিনি(মওদুদ) প্রমান করুক, যে ঘটনার সাথে আ’লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়িত। বাস্তবতা হল, ওবায়দুল কাদেরের উন্নয়ন ও সুশাসনের ফলে নোয়াখালী-৫ আসনের জনগণ মওদুদ আহমদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। যে কারনে তিনি(মওদুদ) এখন অনেকটা দিশেহারা হয়ে আ’লীগের বিরুদ্ধে এবং আমাদের প্রিয় নেতা ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা করছেন।

মিজানুর রহমান বাদল উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, আ’লীগ একটি গণতান্ত্রিক দল। এ দল কখনো পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসেনি। নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ক্ষমতায় আসীন হতে চায় এ দল। আমাদের দল ও আমাদের নেতা ওবায়দুল কাদের চায়, সকল দলের অংশগ্রহনে সুষ্ঠ ও সুন্দর পরিবেশে একটি নির্বাচন। আমাদের নেতা ওবায়দুল কাদের এর জন্য আমাদের প্রতি নির্দেশনাও দিয়েছেন। কিন্তু দূর্ভাগ্য বিএনপির প্রার্থী প্রতিদিনই একটা না হয় একটা অবাস্তব ও ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে আমাদের প্রিয় নেতা থেকে শুরু করে প্রশাসনকেও বিতর্কিত করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি খিজির হায়াত খান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরী রুমেল, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক গোলাম ছারওয়ার, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি নূরুল করিম জুয়েল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন মুন্না, পৌর ছাত্রলীগের সম্পাদক আব্দুল আউয়াল মানিকসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।