আপনাদের উপস্থিতিই প্রমান করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে-ইসরাতুন্নেছা কাদের

প্রশান্ত সুভাষ চন্দ :
===========
নোয়াখালী-৫ নির্বাচনী এলাকায় নৌকার প্রার্থী হচ্ছেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এটি অনেকটাই নিশ্চিত। ওবায়দুল কাদেরের প্রার্থীতা নিশ্চিত জেনেই নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দিপনা বিরাজ করছে সর্বত্র। প্রিয় নেতা এ আসনে প্রার্থী হচ্ছেন বলেই দলীয় নেতাকর্মীরা চষে বেড়াচ্ছেন উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ডে। দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি কোম্পানীগঞ্জে নৌকার প্রচারনায় মাঠে নেমেছেন ওবায়দুল কাদেরের সহধর্মীনি ইসরাতুন্নেছা কাদের। বিভিন্ন মহিলা সমাবেশের মাধ্যমে তিনি তাঁর প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

মহিলা সমাবেশে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি ওবায়দুল কাদেরের পক্ষে ভোটও চাইছেন তিনি। ২৮ অক্টোবর বসুরহাট পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডে আবু নাছের চৌধুরী বাড়িতে প্রথম মহিলা সমাবেশ করেন তিনি। এর পর একে একে চরপার্বতী ইউনিয়নের বি জমান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় ও সিরাজপুর ইউনিয়নের ১ ও ২নং ওয়ার্ডে তৃতীয় মহিলা সমাবেশ করেন তিনি। প্রত্যেকটি সমাবেশে বিপুল সংখ্যক মহিলা জমায়েত হতে দেখা গেছে। তফসিল ঘোষনার পর তিনি আবারো মহিলা সমাবেশের মাধ্যমে প্রচারনা চালাবেন বলে জানা গেছে।

মহিলাদের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহনে প্রত্যেকটি সমাবেশস্থল কানায় কানায় পূর্ণ ছিল। মহিলাদের উপস্থিতি দেখে ইসরাতুন নেছা কাদের মুগ্ধ হয়ে তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের উপস্থিতি এটিই প্রমান করে যে, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নারীরা এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, সমগ্র বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থান করছে।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার প্রার্থী আপনাদের প্রিয় নেতা ওবায়দুল কাদেরকে আবারো নির্বাচিত করে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখুন। ওবায়দুল কাদেরকে নির্বাচিত করলে এ উপজেলার অসমাপ্ত উন্নয়ন কর্মকান্ড ও নারী অগ্রযাত্রায় তিনি আরো গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা রাখবেন বলেও ইসরাতুন নেছা উল্লেখ করেন।

এদিকে ইসরাতুন নেছা কোম্পানীগঞ্জে মহিলা সমাবেশ করার সংবাদ পেয়ে দলীয় নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত হয়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারনা চালিয়ে প্রত্যেকটি সমাবেশকে করে তুলেছেন দৃশ্যমান। মহিলা আ”লীগ নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ কর্মীদের অংশগ্রহনের পাশাপাশি মূলদলের নেতাকর্মীরাও সামাবেশকে সফল করতে কঠোর পরিশ্রম করেন।

বিশেষ করে ওবায়দুল কাদেরের অনুজ বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা, উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল ও মন্ত্রীর ভাগিনা স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদের সদস্য ফখরুল ইসলাম রাহাতের ভ‚মিকা নৌকার প্রচারণায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন তারা। নৌকার বিজয়ে তারা বদ্ধপরিকর। যে কোন মূল্যে আগামী নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে সারা দেশের ন্যায় কোম্পানীগঞ্জেও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে চান। অতীতের যে কোন সময়ের উন্নয়ন রেকর্ডকে তারা ছাড়িয়ে যেতে চান ওবায়দুল কাদেরের মাধ্যমে।

ওবায়দুল কাদেরের উন্নয়ন ও স্থানীয় রাজনীতিতে স্থিতিশীলতায় ইতিমধ্যে সাধারণ মানুষের মনে ব্যাপক দাগ কেটেছে। সাধারণ মানুষ শান্তি ও উন্নয়নে ওবায়দুল কাদেরের বিপল্প নেই এ বিষয়টি অনুধাবন করতে পেরেছেন। তারপরও থেমে নেই দলীয় নেতাকর্মীদের প্রচার প্রচারনা। নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে কেন্দ্র কমিটি ও কেন্দ্র রক্ষা কমিটি গঠনের কাজ শেষ হয়েছে। এখন চলছে ঘরে ঘরে গিয়ে নৌকার পক্ষে লিফলেট বিতরন ও ভোট চাওয়া। তুলে ধরা হচ্ছে উন্নয়ন চিত্র। আব্দুল কাদের মির্জা, মিজানুর রহমান বাদল, ফখরুল ইসলাম রাহাত ও উপজেলা আ’লীগ নেতৃবৃন্দের প্রচার প্রচারনায় নির্বাচনী মাঠে আ’লীগ একটি শক্ত অবস্থানে রয়েছে। প্রস্তুত রয়েছে নির্বাচনের জন্য।