প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে ড. কামালকে ছুঁড়ে ফেলবে বিএনপি, বিশেষজ্ঞদের শঙ্কা

নিউজ ডেস্ক : বিকল্পধারাকে বাদ দিয়েই মাঠে নেমেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এই ঐক্যফ্রন্ট মূলত আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তৈরি হওয়া। তবে বিএনপি-জামায়াত ও ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনকেন্দ্রিক এই ভালোবাসা শেষমেশ কতদূর গড়াবে তা ভবিষ্যতই বলে দেবে। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা ও রাজনীতিতে ভারসাম্য আনার ওয়াদা করে ঐক্যফ্রন্টের কাঁধে চেপে নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চাইছে বিএনপি। নির্বাচনের পর বিএনপি নিশ্চিতভাবে এই ওয়াদা ভঙ্গ করবে এবং ড. কামাল দুকূল হারাবেন বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। বিএনপিকে নিয়ে যে স্বপ্ন ড. কামাল দেখছেন, সেটি যেকোন সময় ভেঙ্গে যাবে এবং ড. কামাল বিএনপির হাতে হেনস্তার শিকার হবেন বলেও আভাস দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক এ আরাফাত বলেন, ড. কামাল দিবাস্বপ্নে বিভোর হয়ে আছেন। তিনি বুঝতে পারছেন না, তিনি আসলে কাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। বিএনপি-জামায়াত ড. কামালের মাথায় কাঠাল ভাঙ্গবে আর তা খাবেন তারেক রহমানসহ জামায়াতের নেতারা। প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে বিফল রাজনীতিকের ভাগ্যবরণ করতে হবে ড. কামালকে। বিএনপি-জামায়াত সুবিধাবাদী দল। ড. কামালকে বিক্রি করে আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করার ষড়যন্ত্র করছে তারা। তাদের এই উদ্দেশ্য সফল হবে না।

পথহারা পথিকদের নিয়ে জোট করে শেষ পর্যন্ত রাজনীতির মাঠ থেকে ছিটকে পড়বেন ড. কামাল বলে মন্তব্য করে বিশিষ্ট রাজনৈতিক বিশ্লেষক সুভাস সিংহ রায় বলেন, ড. কামালের মতো বর্ণচোরা রাজনীতিক নির্বাচনের পূর্বে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার জন্য পাঁয়তারা করছেন।  ড. কামাল অন্ধদের নেতা হয়ে নেতৃত্ব দেওয়ার চেষ্টা করছেন।  বিএনপি-জামায়াত পথ হারিয়ে ড. কামালের হাত ধরে রাজনীতিতে ফিরে আসার চেষ্টা করছে।  প্রয়োজন শেষ হলে বিএনপি-জামায়াত তাদের পরম মিত্রদের ছুঁড়ে ফেলে, সেটি হয়তো ভুলে গেছেন ড. কামাল।  সেই পরিণতি বরণ করার জন্য স্বেচ্ছায় বিএনপি-জামায়াতকে ঘাড়ে নিয়ে ঘুরছেন ড.কামাল।  এটার পরিণতি তার জন্য খুব খারাপ হবে।  ড. কামাল নিজ হাতে নিজের গলায় বদনামের মালা পরতে যাচ্ছেন।