কানাডায় প্রত্যাখ্যাত বিএনপি, নতুন করে বাড়তে পারে আন্তর্জাতিক চাপ

নিউজ ডেস্ক : বিএনপি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সন্ত্রাসী সংগঠন। দলটির নেতা-কর্মীরা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত এবং সে কারণে দলটির নেতা-কর্মীরা কানাডার মতো উদার দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়ার ক্ষেত্রে চরম বিপত্তির সম্মুখীন হচ্ছে। মূলত দলটির হিংসাত্মক ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে গত দুই বছরে অন্তত ছয় জন বিএনপি নেতার অভিবাসন সংক্রান্ত আবেদন খারিজ করে দিয়েছে কানাডা।

এদিকে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিএনপির ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের কারণে শুধু দেশে নয় বরং বিদেশেও দলটির নেতা-কর্মীরা গ্রহণযোগ্যতার সংকটে পড়ছেন। আর সেটির উৎকৃষ্ট উদাহরণ কানাডা কর্তৃক বিএনপি নেতাদের অভিবাসন সংক্রান্ত আবেদন খারিজ।

বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বিগত দুই বছরে অন্তত ছয়জন বিএনপির চিহ্নিত নেতার রাজনৈতিক আশ্রয় এবং অভিবাসন সংক্রান্ত আবেদন নাকচ করে দিয়েছে কানাডার কর্তৃপক্ষ। মূলত ২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে ও পরে ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড এবং জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ততার বিষয় জেনেই কানাডার মতো রাষ্ট্র দলটির নেতা-কর্মীদের সন্ত্রাসী বিবেচনা করে আবেদনগুলো নাকচ করে দিয়েছে। এছাড়া স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির সাথে প্রকাশ্য আঁতাত থাকায় নিজ দেশের পরিস্থিতির সম্ভাব্য অস্থিতিশীলতা বিবেচনা করেই বিএনপির নেতাদের গ্রহণ করতে রাজি হয়নি কানাডা।

এছাড়া এরইমধ্যে বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে কানাডার ফেডারেল কোর্ট।

এ বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ফরিদ হোসেন বলেন, কানাডা অনেক আগেই বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করেছে। তারই প্রেক্ষিতে দলটির নেতা-কর্মীদের আবেদনগুলো ফিরিয়ে দিয়েছে দেশটি। এ ক্ষেত্রে বোঝা যায়, দলটির কর্মীরা কানাডার জন্য ক্ষতিকর এবং অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য হুমকি বিবেচনা করেই এমনটি করতে পারে উক্ত দেশটির কর্তৃপক্ষ। এটি বাংলাদেশের রাজনীতির জন্য একটি লজ্জাজনক অধ্যায়। কানাডার এমন সিদ্ধান্তে নতুন করে আন্তর্জাতিক চাপে পড়েছে বিএনপি। সন্ত্রাসী তকমা লেগে যাওয়ায় বিএনপি নতুন করে বিদেশি বন্ধুরাষ্ট্রগুলোর সন্দেহের দৃষ্টিতে পড়ে গিয়েছে।

বিএনপির জনবিরোধী কর্মকাণ্ড শুধু দেশেই নয় বরং আন্তর্জাতিকভাবেও ঘৃণিত, সেটি আবারও প্রমাণিত হলো, এমন মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আমরা বরাবরই বলতাম, বিএনপি একটি সন্ত্রাসী সংগঠন। বিএনপি সেটি মানতে নারাজ ছিল। এখন কানাডা সরকারের এমন পদক্ষেপে বিএনপি কী উত্তর দেবে? বিএনপি যে শুধু বাংলাদেশের জন্য নয় বরং পুরো বিশ্বের জন্য ক্ষতিকর, সেটি এবার আন্তর্জাতিকভাবে প্রমাণ হলো। দেশ ও আন্তর্জাতিক শান্তি ও সমৃদ্ধি বিবেচনায় বিএনপিকে বর্জন করা উচিত।