তারেকের মৃত্যুদণ্ড না হওয়ায় শঙ্কা মুক্ত বিএনপি নেতারা

নিউজ ডেস্ক: প্রায় ১৪ বছর পর বহুল প্রতিক্ষিত ও আলোচিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তারেক রহমানসহ ১৯ আসামির যাবজ্জীবন এবং লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ আসামির মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। যদিও আদালতের রায়কে প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি। তবে শেষপর্যন্ত খালেদা জিয়ার অবর্তমানে দলের একমাত্র উত্তরসূরী তারেক রহমানের ফাঁসির রায় না হওয়ায় খুশি দলের নেতারা। তারেক রহমানের মৃত্যুদণ্ড না হওয়াকে বিএনপি জন্য ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরাও।

রায় প্রসঙ্গে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় বলেন, যেহেতু গ্রেনেড হামলার রায়ে তারেক রহমান দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন ফলে এ রায় আমাদের জন্য সুখকর হবে না এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বলতে দ্বিধা নেই যে, এ মামলায় অন্তত তারেক রহমানের মৃত্যুদণ্ড না হওয়ায় আমরা খুশি।

সূত্র বলছে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বিএনপিতে একধরণের শঙ্কা তৈরি হয়েছিলো। কেননা, দলের কর্ণধার বেগম খালেদা জিয়া ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি’ মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে আছেন। যদিও তার অবর্তমানে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন লন্ডনে পলাতক তারেক রহমান। এরইমধ্যে লন্ডনে থাকার কারণে দেশের রাজনীতিতে সরাসরি অংশ নিতে না পারায় দলের মধ্যে নানা ধরণের অসঙ্গতি তৈরি হয়েছে। এমন অবস্থায় যদি গ্রেনেড হামলার রায়ে তারেক রহমানের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হতো তবে তা বিএনপির নেতৃত্বে সরাসরি আঘাত হানতো। রায়ের পরে এমন শঙ্কা থেকে কিছুটা মুক্তি পেয়েছে বিএনপি নেতারা। ফলে তারেকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশে নেতাদের মধ্যে সেই শঙ্কা কিছুটা প্রশমিত হয়েছে।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় ও তারেকের দণ্ডাদেশ প্রসঙ্গে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক নাসিম আখতার হোসাইন বলেন, এ রায়টি বিএনপির জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিলো। হামালার পরিকল্পনাকারী হিসেবে যেহেতু তারেক রহমানের নাম এসেছে এবং তারেক রহমানের জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমাণিত সুতরাং অন্য ১৯ আসামির মতো তারেক রহমানেরও মৃত্যুদণ্ড হতে পারতো। যদি তাই হতো তবে তা বিএনপির জন্য বড় ধরণের হুমকি সৃষ্টি করতো।

জানতে চাওয়া হলে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির নেতা অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন বলেন, প্রকৃতপক্ষে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়কে ঘিরে দলের মধ্যে একধরণের শঙ্কা তৈরি হয়েছিলো। তবে দলের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে মৃত্যুদণ্ড দিলে এ ক্ষতি সামলানো একটু কঠিন হয়ে যেত আমাদের। তবে যে রায় ঘোষণা করা হয়েছে তা দল প্রত্যাখ্যান করেছে। আমরা এ রায়ের বিরুদ্ধেও আপিল করবো।

শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিন :