জাতীয় ঐক্যকে ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার করতে চায় বিএনপি

 

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া ও যুক্তফ্রন্টের ব্যানারে মূলত সরকার বিরোধী আন্দোলন করে ক্ষমতায় যেতে চাচ্ছে বিএনপি। মূলত জাতীয় ঐক্যকে বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার করতে চাচ্ছে। তবে, বিএনপির সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাট, ক্ষমতার অপব্যবহার, জঙ্গিদের আশ্রয়দানের রাজনীতির অভিজ্ঞতা উপলব্ধি করে বিএনপির ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হতে রাজি হচ্ছেন না জাতীয় ঐক্যের নেতৃবৃন্দ।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে এখন কারাগারে ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান দীর্ঘদিন ধরে দেশের বাইরে পলাতক আছে। এমতাবস্থায় বিএনপির কেন্দ্রীয় ও তৃণমূল নেতাদের মধ্যে ক্ষমতা লাভের লোভে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। বিএনপির বর্তমান যে পরিস্থিতি তাতে বিএনপির একার পক্ষে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হওয়া সম্ভব হবে না। তাই বিএনপি জাতীয় ঐক্যে যুক্ত হয়ে, তাদেরকে ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহার করতে চাচ্ছে।

এ সম্পর্কে জাতীয় ঐক্যের নেতারা বলেন, ‘বিএনপিকে ক্ষমতায় যেতে সাহায্য করলে জাতীয় ঐক্যের এতদিনের পরিশ্রম পণ্ড হয়ে যাবে। বিএনপি-জামায়াত চোর আর দুর্নীতিবাজদের আড্ডাস্থল। বিএনপি ক্ষমতায় আসলে ধর্মের নামে দেশের জ্ঞানী-গুণী, মেধাবী মানুষদের হত্যা করে দেশকে মেধাশুন্য করবে। ফলে বাংলাদেশ আবারও পিছিয়ে যাবে এবং দেশটি আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের মতো ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবে’। এক কথায়, বিএনপি-জামায়াত রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করলে দেশ হবে জাহান্নাম। সুতরাং কোনভাবেই বিএনপি-জামায়াতকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় বসতে দিবে না জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া।

বিকল্পধারার মুখপাত্র মাহী বি চৌধুরী টেলিফোনে জানান, ‘প্রথমত, জামায়াতকে বিএনপি ছাড়বে- এটিই আমরা বিশ্বাস করি না। দ্বিতীয়ত, জাতীয় ঐক্যের বিষয়টি আসলে রাজনৈতিক ঐক্য। ফলে ওই ঐক্য করতে কতগুলো কর্মসূচির ব্যাপারে একমত হতে হবে’। একসঙ্গে আন্দোলন, নির্বাচন ও সরকার গঠনসহ ঐক্যের কাঠামো কী হবে এ বিষয়টি নিশ্চিত না করা পর্যন্ত কিছুই সম্ভব নয়।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির এক নেতা জানায়, ‘পঁচে যাওয়া বিএনপিকে নতুন জীবন দিতে জাতীয় ঐক্যের বিকল্প দেখছেন না তারেক রহমান’। জাতীয় ঐক্যের মাধ্যেমেই বিএনপি ক্ষমতায় যেতে পারবে বলে তারেক রহমানের বিশ্বাস। তাই বি. চৌধুরী এবং ড. কামালকে বুঝিয়ে তাদের পক্ষে আন্দোলন করে বিএনপিকে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করার জন্য মির্জা ফখরুলকে বিশেষ দায়িত্ব দিয়েছেন তারেক রহমান।

তবে জাতীয় ঐক্যের কেউ ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হিসেবে ব্যবহৃত হতে আগ্রহী নয়।