তারেকের প্রতি তৃণমূল বিএনপির ক্ষোভ

বিএনপি’র বর্তমান রাজনৈতিক দুরবস্থার জন্য তারেক রহমানকে দায়ী করেন তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। সিনিয়র নেতাদের সাথে খারাপ ব্যবহার ও অবমূল্যায়নের জন্য তারেকের প্রতি অনীহা দেখাচ্ছেন তারা। তৃণমূল নেতাদের অনিচ্ছা স্বত্বেও জামায়াতকে ছাড়া বিএনপিকে যুক্তফ্রন্টে যুক্ত হওয়ার অনুমতি দিয়েছে তারেক। এ কারণে তারেকের প্রতি তৃণমূল বিএনপি’র ক্ষোভ।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাবাসের প্রায় সাত মাস হয়ে গেলেও কঠোর কর্মসূচি দিতে ব্যর্থ হয়েছে বিএনপি। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও  খালেদার মুক্তির ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছে না । নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে এসেও  অনাগ্রহের কারণেই তার উপর ক্ষুব্ধ তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

গোপন সূত্র জানায়, লন্ডনে পালাতক তারেক রহমান খালেদাকে ছাড়াই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যেতে চাচ্ছে। তবে দলের তূণমূল নেতারা খালেদার মুক্তি করে তার নেতৃত্বে নির্বাচনে যেতে আগ্রহী। কারণ তারেকের দুর্নীতি ও নানা অপকর্মের জন্য তৃণমূল নেতারা তার উপর থেকে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছে। আর আগামী মাসেই ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলার রায় দেওয়ার কথা । রায়ে যদি তারেক রহমারের বড় ধরণের সাজা হয় সে ক্ষেত্রে তারেক নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না। এমন পরিস্থিতিতে বিএনপির নেতৃত্বে জিয়া পরিবারের কেউ থাকছে না। তাই তৃণমূল নেতারা আগে খালেদাকে কারা মুক্তি করতে বেশী আগ্রহী।

জাতীয় এক্যের নামে বিএনপির যুক্তফ্রন্টে যুক্ত হওয়াকে ভাল চোখে দেখছে না তৃণমূল নেতারা। কারণ যুক্তফ্রন্টে জামায়াত না রাখার যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাতে বিএনপি বেশী ক্ষতি হবে। বিএনপির সব আন্দোলনেই জামায়াতের কারনে সফলতা এসেছে। তাই জামায়াত ছাড়া কোন ঐক্যে বিএনপির যাওয়া ঠিক হবে না। জামায়াতকে ছেড়ে জাতীয় ঐক্যে যাওয়াটা তারেকের ভুল সিদ্ধান্ত বলে মনে করেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।

তৃণমূল বিএনপি’র একজন নেতা জানান, তৃণমূল বিএনপি যুক্তফ্রন্টের অধীনে কোন আন্দোলনে অংশ নেবে না। ২০১৪ এবং ২০১৫ সালের দেশব্যাপী যে আন্দোলন বিএনপি করেছে তাতে তৃণমূল নেতারা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সেই মামলায় এখনো অনেক তৃণমূল নেতা জেলে এবং অনেকে দেশের বাইরে পলাতক আছে।

দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে বিএনপি। এ দীর্ঘ সময় তৃণমূল নেতাদের সাথে যোগাযোগ রাখেননি তারেক। দলের কারণে তৃণমূল নেতারা রাজপথে নেমেছে, মামলা খেয়েছে, জেলে গিয়েছে। আর সেই নেতারা দুঃসময়ে পাশে পায়নি তারেককে। ৩ সেপ্টেম্বর লন্ডনের সমাবেশে তারেক তৃণমূল নেতাদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলায় তার প্রতি ক্ষুদ্ধ তৃণমূল নেতৃবৃন্দ।