পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সহকারী সচিবের ফেসবুক হ্যাক করেছে শিবির

নিউজ ডেস্ক: বিশ্বের শীর্ষ সন্ত্রাসী সংগঠন ছাত্রশিবির বর্তমানে রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসনের সংসদ সদস্য ও বর্তমান সরকারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের (একান্ত) সহকারী সচিব (এ.পি.এস) সিরাজুল ইসলামের ফেসবুক আইডি হ্যাক করেছে বলে জানা গেছে।

গত সোমবার শিবিরের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন সাংসদ সিরাজুল ইসলামকে বনানীর একটি অভিজাত শপিং কমপ্লেক্সের নিচে প্রকাশ্যে হুমকি দেয়। জানা যায়, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব (এ.পি.এস) সিরাজুল ইসলামের ফেসবুক আইডি শিবির সেক্রেটারি মোবারক হুমকি দিয়ে চলে যাবার ৩৭ মিনিট পরই হ্যাক হয়ে যায়। এ ঘটনায় পল্লবী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

জানা গেছে, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব সিরাজুল ইসলাম ২০০৮ সাল থেকে ইংরেজি বানানে মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম (Mohammad Sirajul Islam) নামে একটি ফেসবুক একাউন্ট চালিয়ে আসছেন।
যেখানে তিনি তার লেখনীর মাধ্যমে রাষ্ট্র বিরোধী ষড়যন্ত্রে যারা লিপ্ত তাদের বিরুদ্ধে জনমত গঠনে কাজ করতেন। শিবিরের অপরাজনীতি আর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড নিয়ে তার সোচ্চার ভূমিকা ছিল সামাজিক এই যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশংসিত। সম্প্রতি তার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয় এবং পরবর্তীতে অপরিচিত একটি ই-মেইল থেকে হ্যাকিংয়ের বিষয়টি তাকে জানানো হয়। তারপর থেকে তিনি ফেসবুকে প্রবেশ করতে পারছেন না।

আইডি হ্যাক হওয়ার পরদিন ৩ সেপ্টেম্বর তিনি ঢাকা পল্লবী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। তার এই ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে যদি কোনো পোস্ট, কমেন্টস বা ম্যাসেজ যায় তাহলে সেটা ফেক হিসেবে বিবেচিত হবে বলে অভিযোগ করেছেন। এতে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য তিনি অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে পল্লবী থানায় যোগাযোগ করা হলে তারা অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলে, এটা সাইবার অপরাধ। এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। শিবির সেক্রেটারি মোবারকের হুমকির বিষয়টি মাথায় রেখে তদন্ত চলবে বলেও জানিয়েছেন পল্লবী থানার ওসি মো. নজরুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, আইএইচএস জেনসের ‘টপ ১০ মোস্ট অ্যাকটিভ নন স্টেট আর্মড গ্রুপস ইন ২০১৩’ এর তালিকায় বিশ্বের সবচেয়ে সহিংস ও তৎপর সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর প্রথম তিনটির একটি হিসেবে চিহ্নিত বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র শিবির। বিশ্বখ্যাত নিরাপত্তা বিষয়ক থিঙ্কট্যাংক আইএইচএস জেনস গ্লোবাল টেরোরিজম অ্যান্ড ইনসারজেন্সি অ্যাটাক ইনডেক্স-২০১৩ এর তথ্যমতে এই সন্ত্রাসী সংগঠনটি তাদের সকল তৎপরতার শুরুতেই হ্যাকিংয়ের বিষয়ে কর্মীদের দক্ষতা অর্জনে গুরুত্ব দেয়। তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড নিয়ে অনলাইনে যে কেউ প্রচারণা চালালেই তাদের কর্মীরা হ্যাকিংয়ের আশ্রয় নেয়।