কুড়িগ্রাম জেলার জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের বিরুদ্ধে ঘুষের বিনিময় টেন্ডারের কাজ প্রদানের অভিযোগ

মোঃ একরামুল হক বুলবুল, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ ২৯.০৮.২০১৮

কুড়িগ্রাম জেলার জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে ঠিকাদারি কাজের ভুয়া কাগজ পত্রের মাধ্যমে ঘুষের বিনিময়ে টেন্ডারের কাজ প্রদান করেন। কুড়িগ্রাম জেলার জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের কার্যাদেশ এর স্মারক নং-১৬৯১, তাং-১২/০২/২০১৮, প্যাকেজ নং- ইডাব্লিউএসএসপি/টিডাব্লিউ-০১, টেন্ডার আইডি নং-১৩৯৬৮৯, (ডিপিএইচই রংপুর সার্কেলের সেফ ওয়াটার সাপ্লাই এন্ড স্যানিটেশন প্রকল্পে কুড়িগ্রাম জেলায় (ছিটমহল এলাকার বাইরে) ৬নং শ্যালো টিউবয়েল স্থাপন (অর্থবছরঃ ২০১৭-২০১৮), টাকার পরিমান=৫৪,৩৫,৩৬৫/- এবং স্মারক নং-১৫২৫, তাং-০৭/০১/২০১৮, প্যাকেজ নং- টিডাব্লিউ-১৩৮৮,

টেন্ডার আইডি নং-১১৭৭২৭, (কুড়িগ্রাম জেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সাভমারসিবল পাম্প এবং ওএইচটি টিএসপি সহ টিইবল স্থাপন করা পিইডিপি-৩ প্রকল্প, আর্থিক বছরঃ ২০১৫-২০১৬) টাকার পরিমান=৫৪,৯৬,১১০/- এবং স্মারক নং-১৭২৩, তাং-১৮/০২/২০১৮, প্যাকেজ নং- ইডাব্লিউএসএসপি/টিডাব্লিউ-০২, টেন্ডার আইডি নং-১৩৯৬৯০, (ডিপিএইচই রংপুর সার্কেলের সেফ ওয়াটার সাপ্লাই এন্ড স্যানিটেশন প্রকল্পে কুড়িগ্রাম জেলায় (ছিটমহল এলাকার বাইরে) ৬নং শ্যালো টিউবয়েল স্থাপন (অর্থবছরঃ ২০১৭-২০১৮), টাকার পরিমান=৪৫,০০,০০০/-, উক্ত কাজ পাওয়ার জন্য কয়েকজন টেন্ডারে অংশগ্রহন করলেও কোনরকম নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ভূয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে ১ ও ২ নং কাজ প্রায় ১৫.০০ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে মেসার্স দৌলা এন্ড কোং, জেএনসি রোড, আলমনগর, রংপুরকে প্রদান করা হয়েছে এবং ৩ নং কাজ প্রায় ৬.০০ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে আব্দুল কুদ্দুস চৌধুরী, ছমির উদ্দিন রোড, নীলফামারীকে প্রদান করা হয়েছে। উক্ত ঠিকাদারগণের এই কাজ করার কোন অভিজ্ঞতা নাই এবং তাদের টানওভার খুবই সামান্য যাহা তদন্ত করলে বেরিয়ে আসবে। নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন তালুকদার এর অসুস্থতার সুযোগ নিয়ে সহকারী প্রকৌশলী মোঃ নাইমুল এহসান টাকার বিনিময়ে উক্ত কাজ মেসার্স দৌলা এন্ড কোং এবং আব্দুল কুদ্দুস চৌধুরী কে প্রদান করেছেন।

কোনরকম নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ভূয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে অনিয়ম করে দুর্নীতির মাধ্যমে উক্ত টেন্ডারের কাজ পাইয়ে দেওয়া হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করতে না পারায় বারবার এ রকম কাজ করতে থাকবে এবং প্রকৃত ঠিকাদারগণ কাজ থেকে বঞ্চিত হবে।

উল্লেখ্য যে, মেসার্স মুরাদ ট্রেডার্স, নাজিরা চৌধুরী পাড়া, কুড়িগ্রাম সদর, কুড়িগ্রাম এ বিষয়ে উপ-পরিচালক, দুর্নীতি দমন কমিশন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়, স্টেশন রোড, আলমনগর, রংপুরকে দ্রুত তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পত্র প্রেরণ করা হলেও অদ্যাবধী পর্যন্ত কোন প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় নাই।