৭৫ এর পর আওয়ামী লীগের সঙ্গে যা যা করেছি, তার ফল ভুগছি: তরিকুল ইসলাম

 

বাংলাদেশের রাজনীতিতে এক পরিচিত মুখ তরিকুল ইসলাম। বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন প্রভাবশালী সদস্য। বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন একজন সদস্য। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে ক্ষমতার স্বাদও যেমন পেয়েছেন, তেমনি বিরোধী দলের নেতা হিসেবে রাজপথে দলের সভা, সমাবেশ, কর্মসূচি, মিছিল, মিটিংয়েও সম্মুখ থেকে নেতৃত্ব দিয়ে গেছেন।

কিন্তু সব কিছুরই অবসান আছে। বয়স হয়েছে। বর্তমানে তিনি বিছানায় শয্যাশায়ী। দলের কর্মসূচি ও আন্দোলনে আর আগের মতো সক্রিয়ভাবে উপস্থিত থাকতে পারছেন না। শারীরিক অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। বলা যায় একরকম মৃত্যুর প্রহর গুনছেন। তারপরও অভিজ্ঞ নেতা হিসেবে এখনও তার কাছে কর্মীরা আসেন। কষ্ট হলেও কথা বলেন, টুকটাক। পরামর্শ চান দলের কর্মীরা। মাঝে মাঝে দলীয় নেতারাও যান, দেখা করেন।

গতকাল ছিল বিএনপির মানববন্ধন কর্মসূচি। এটা শেষ করে কয়েকজন কর্মী এবং স্থানীয় নেতারা গেলেন তার সাথে দেখা করতে। অসুস্থ ঐ নেতা বিএনপির বর্তমান অবস্থা দেখে ভীষণ হতাশ। বহু কষ্টে বিছানা থেকে উঠে হেলান দিয়ে বসে কর্মীদের বললেন, ‘প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সাহেব রাজনীতিকে ডিফিকাল্ট করার কথা বলেছিলেন। আর তারেক বিএনপি করাই ডিফিকাল্ট করে দিয়েছে। বাপের বেটা একদম।’

কথা বলতে অনেক কষ্ট হয়। একদিন অন্তর অন্তর ডায়ালাইসিস করেন, তাই হাঁপিয়ে ওঠেন একটু কথা বললেই। বললেন, ‘৭৫ এর পর আমরা আওয়ামী লীগের সঙ্গে যা যা করেছি, এখন তার প্রতিদান পাচ্ছি। এটাই নিয়ম। আর ক’দিন পরই মরে যাবো হয়তো। মরার আগে সত্য কথাগুলো বলা দরকার। অন্যের জন্য কবর খুঁড়লে, সেই কবরে নিজে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।’ প্রবীণ এই নেতা বলেন, ‘আমরা ক্ষমতায় থাকতে যা করেছি, এখন আমরা তারই কর্মফল ভোগ করছি।’

উল্লেখ্য, তরিকুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে কিডনী জটিলতা, ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছেন। গত কয়েক বছর ধরে নিয়মিত চিকিৎসা নেয়ার জন্য সিঙ্গাপুরে যাওয়া আসাও করছেন।