ড. কামালই কি বিএনপির ভাঙ্গনের কারণ?

ড. কামাল জাতীয় ঐক্যের নামে বিএনপিকে ভাঙ্গছেন বলে মনে করছেন অনেকেই। বিএনপির কিছু সিনিয়র নেতাকে এই ঐক্যে নিতে চাওয়ার কারনেই এমনটি হচ্ছে বলে ধারণা করছেন তারা।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে। নিয়মিত টেলি আলাপেও বসছেন কামাল-ফখরুল। মির্জা ফখরুল ড. কামালকে আশ্বস্ত করেছেন, ঐক্য প্রক্রিয়ায় তিনি থাকবেন। তবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পুরো বিএনপিকে নিয়ে ঐক্য প্রক্রিয়ায় যেতে চান। কিন্তু ড. কামাল তাঁর ঐক্য প্রক্রিয়ায় তাদেরই রাখতে চান যাদের ইমেজ ভাল অর্থাৎ যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও সন্ত্রাসের অভিযোগ নেই।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ ও ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের মতো ইমেজ সংকটে থাকা নেতাদের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার চান না ড. কামাল, এমনটাই জানিয়ে দিয়েছেন ফখরুলকে। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মূল লক্ষ্য সন্ত্রাস, পেশী শক্তি এবং দুর্নীতিমুক্ত রাজনীতি। এজন্য প্রস্তাবিত জোটে তিনি এ ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের রাখতে চান না। এক্ষেত্রে বিএনপিতে মির্জা ফখরুল ছাড়া যাদের পছন্দ তার তারা হলেন লে. জেনারেল (অব.) মাহাবুবুর রহমান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদের মতো রাজনীতিবিদদের।

ড. কামালের এমন পছন্দ অপছন্দের কারণেই প্রশ্ন উঠেছে, ড. কামাল হোসেনই কি তাহলে ভাঙছেন বিএনপি? বিএনপিতে ক্রমশ: এই প্রশ্ন বড় হয়ে উঠছে। কারণ, গত কয়েক মাস ধরেই বিএনপি মহাসচিব ২০ দলের চেয়ে যুক্তফ্রন্ট এবং ড. কামালের ঐক্য প্রক্রিয়ার ব্যাপারে বেশি আগ্রহী। এসব জোটের অনুষ্ঠানে তিনি একাই আমন্ত্রিত হচ্ছেন এবং একাই যাচ্ছেন। শুধু তাই নয়, এসব অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব বেগম জিয়ার মুক্তির প্রসঙ্গটি এড়িয়ে যাচ্ছেন। কথা বলছেন শুধু জাতীয় ঐক্য নিয়ে।

বিএনপির অনেক নেতাই মনে করছেন, তাহলে মির্জা ফখরুল বিএনপি থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন কি? তিনি কি ড. কামাল এবং অধ্যাপক বি. চৌধুরীর জোটে যাচ্ছেন?

বিএনপির একটি বড় অংশ ফখরুলের সঙ্গে ড. কামাল এবং বি. চৌধুরীর অতিরিক্ত মাখামাখিতে বিরক্ত। তারা মনে করছেন, মির্জা ফখরুল ভুল পথে চলছেন।

বিএনপির একজন নেতা জানান, ফখরুলের সঙ্গে ড. কামাল এবং বি. চৌধুরীর অতিরিক্ত মাখামাখিতে বিরক্ত দলের একটি বড় অংশ। মির্জা ফখরুল ভুল পথে চলছেন। অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী একজন বিশ্বাস ভঙ্গকারী। জিয়াউর রহমানের হত্যাকাণ্ডে তাঁর ভূমিকা নিয়ে আমাদের অনেক প্রশ্ন আছে। অন্যদিকে ড. কামাল একজন জনবিচ্ছিন্ন মানুষ। এরা সুবিধাবাদী। এখন এরা বিএনপির উপর সওয়ার হয়ে ফায়দা হাসিল করতে চায়।

জাতীয় ঐক্য ছাড়া বিএনপির নির্বাচনে যাওয়ার অন্য কোন উপায় নেই। তাই ফখরুল জাতীয় ঐক্যে যোগ দিতে চাইলেও বিএনপির আরেক অংশকে ড. কামালের না নেওয়ার সিদ্ধান্তে দলের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে যে, ড. কামাল হোসেন ইস্যুতে দ্বন্দ্বের কারণে বিএনপিতে ভাঙ্গন ধরেছে।