আন্তর্জাতিক চক্রের ইশারায় দেশকে অস্থিতিশীল করতে ষড়যন্ত্র করছিলেন শহিদুল আলম

 

নিউজ ডেস্ক: নিরাপদ সড়ক দাবির আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে এপ্রিল মাস জুড়ে একাধিক আন্তর্জাতিক চক্র ও ব্যক্তিদের সাথে তথ্য আদান-প্রদান করে ষড়যন্ত্রের ই-মেইল চালাচালি করেন রাষ্ট্র ও সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রের অভিযোগে আটক চিত্রশিল্পি শহিদুল আলম।  বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এসব তথ্য জানা গেছে।  আন্দোলনের নামে সরকারকে হেনস্থা করা এবং সরকারকে চাপে ফেলার জন্য শহিদুল আলম এবং একাধিক বিদেশি গোপন পরিকল্পনা করেন।

জানা যায়, জনৈক মার্টিন থিয়েরি এবং জ্যাসপার নামক দুজন ব্যক্তির সাথে বিভিন্ন ষড়যন্ত্রের বার্তা আদান-প্রদান করেন শহিদুল আলম।  ২৪ জুলাইয়ের বার্তায় মার্টিন ও জ্যাসপার নিরাপদ সড়কের দাবির নামে সরকারকে ক্রমাগত চাপে ফেলতে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম, বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগ রাখার নির্দেশ দেন শহিদুলকে।  প্রয়োজনে টাকা খরচ করে, তাদের উপহার পাঠিয়ে নিজেদের গোপন মিশনের ব্যাপারে কথা বলতে রাজি করানোর জন্য শহিদুলকে অনুরোধ করেন তারা।

এছাড়া সরকারের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি করতে সকলকে নিয়ে মাঠে নামার নির্দেশনা আসে দুই বিদেশির ই-মেইল থেকে।  প্রয়োজনে নিরাপদ সড়কের আন্দোলনকে সহিংসতার রূপ দিয়ে সরকারের টনক নড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে শহিদুল আলমকে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করা হয়।

সহিংসতায় সরকারকে বাধ্য করা হবে সকল দাবি মেনে নিতে।  এছাড়া শহিদুল আলম দুজনকে বার্তা দেন যে বাংলাদেশের অবস্থা ভাল না।  যেকোন দাবি আদায় করতে সহিংসতা করলে সরকার বাধ্য হয়ে সেগুলো মেনে নেয়, এমন মিথ্যা এবং উসকানীমূলক তথ্যও পাচার করেছেন শহিদুল আলম।

এছাড়া আইএসআইয়ের চর এবং পাকিস্তানের বিতর্কিত চিত্রশিল্পি সেলিমা হাসমির সাথেও মেইলে যোগাযোগ করে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে পুলিশ ও সরকার দলীয় কর্মীদের সহিংসতায় জড়িত থাকার গুজব সম্পর্কিত তথ্য পাচার করেন।  বাংলাদেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সেলিমা হাসমির মাধ্যমে আইএসআইকে পাচার করে দিয়েছেন শহিদুল আলম।

বাংলাদেশকে একটি অনুন্নত, গরীব দেশ হিসেবে বিদেশিদের কাছে তুলে ধরে দেশকে ছোট করেছেন তিনি।  শহিদুল আলমের এমন কাজ সরাসরি রাষ্ট্রদ্রোহ ও ষড়যন্ত্র।  বাংলাদেশের মত একটি উন্নয়নশীল দেশের উন্নয়ন যাত্রাকে ব্যাহত করতেই শহিদুল আলম বিদেশি শত্রুদের পরামর্শে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন।  একাজে তাকে সহায়তা করেছে একাধিক প্রভাবশালী দেশি ও বিদেশি।