উৎফুল্ল বেগম জিয়া, আন্দোলন বেগবান করতে নেতাদের নির্দেশ

নিউজ ডেস্ক: দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে ছয় মাসের অধিককাল সময় ধরে কারাগারে আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ৩ আগষ্ট বিকেলে বোন সেলিমা ইসলাম এবং ব্যক্তিগত চিকিৎসক মামুন আহমেদসহ পাঁচজন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান। সূত্র বলছে, চিকিৎসার অজুহাতে সাক্ষাত করতে গেলেও বরং নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান শিক্ষার্থী আন্দোলন নিয়ে আলোচনা করেছেন তারা। ছাত্রদের আন্দোলনকে ব্যবহার করে সরকার ও আওয়ামী লীগকে নাজেহাল করার জন্য গোপন বার্তা দিয়েছেন বেগম জিয়া।

বেগম জিয়ার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সেলিমা ইসলাম এবং ডা. মামুন আহমেদ উভয়ই খালেদা জিয়াকে চলমান শিক্ষার্থী আন্দোলনের সফলতা, সরকারের নীরবতা, নিজেদের রাজনৈতিক ফায়দা নেওয়ার পরিকল্পনা এবং বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার ব্যাপারে নিজেদের কুপরিকল্পনার কথা বিশদ জানিয়েছেন তারা। আন্দোলনে কোন মন্ত্রী, এমপি, বিচারপতি, পুলিশ ও প্রশাসনকে কীভাবে হেনস্তা করা হয়েছে, কোথায় কী নাশকতা বা গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে তার বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছেন তারা। এসব শোনার সময় খালেদা জিয়াকে খুব উৎফুল্ল দেখাচ্ছিল এবং তিনি বারবার ঘটনার বিশদ বিবরণ শুনতে চাচ্ছিলেন।

এসময় তিনি ছাত্রদল ও ছাত্র শিবিরকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে ঢুকিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি ঘোলা করার পরামর্শ দিয়েছেন খালেদা জিয়া। এই আন্দোলনকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিয়ে সরকারের উপর আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করার জন্য বিএনপির নেতা-কর্মীদের আদেশ দিয়েছেন বেগম জিয়া। বিজয় নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনে ব্রেনওয়াশ করারও নির্দেশ দেন তিনি।

খালেদা জিয়ার কথা-বার্তায় কোন রকমের অসুস্থতার লক্ষণ দেখা যায়নি বলে স্বজনদের মারফত জানা গেছে।কারণ অসুস্থ অবস্থায় একজন মানুষের পক্ষে উৎফুল্ল হওয়া বা নাশকতার সংবাদের জন্য অপেক্ষা করে থাকাটা একটি বিস্ময়কর ঘটনা।