আন্দোলনকে কাজে লাগিয়ে ফায়দা লুটতে ছাত্র ইউনিয়নের পায়তারা, নেপথ্যে তারেক

নিউজ ডেস্ক: রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত শিক্ষার্থীদের বিচারের দাবিতে চলমান আন্দোলনে প্রকাশ্যে হিংসার বানী ছড়াচ্ছে ছাত্র ইউনিয়ন। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উস্কানি দিয়ে রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে লেলিয়ে দিতে তারেক রহমানের নির্দেশে এমনটাই করছে বাম ছাত্র সংগঠনটি। স্বার্থ উদ্ধার হলে তারেক রহমানের পক্ষ থেকে পুরষ্কার হিসেবে সংগঠনটিকে এক কোটি টাকা দেয়ার নিশ্চয়তা প্রদান করা হয়েছে বলে গোপন সূত্রের মাধ্যমে জানা গেছে।

সূত্র বলছে, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে বিএনপি ব্যর্থ হওয়ায় বিকল্প পথ হিসেবে ছাত্র ইউনিয়নকে টার্গেট করেন তারেক রহমান। ২ মার্চ গভীর রাতে সংগঠনটির একাধিক ছাত্র নেতাদের সাথে যোগাযোগ করে আন্দোলনের নামে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পরিকল্পনা জানান তারেক। বিনিময়ে অর্থের প্রলোভন দেখান তিনি। অর্থাভাব ও ইমেজ সংকটে থাকা ছাত্র ইউনিয়ন তাই তারেক রহমানের অফার নিমিষেই লুফে নেয়। তারই অংশ হিসেবে সম্প্রতি রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে সংহতি সমাবেশে আন্দোলনরত ছাত্রদের উস্কানি দিয়ে বক্তব্য দেন সংগঠনটির একাধিক নেতা।

তারা বলেন, ছাত্রদের আন্দোলনে যেই বাধা দিতে আসবে, তার হাত-পা ভেঙ্গে দেওয়া হবে। ছাত্ররা যা করছে তাতে আমাদের সমর্থন রয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেতারা মিথ্যা অভিযোগ করে বলেন, সরকার আন্দোলনকারীদের শিক্ষার্থীদের হুমকি দিচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নাকি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে হুশিয়ারি উচ্চারণ করছেন, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। এমনকি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দেশ্যেও নেতিবাচক মন্তব্য করেন বক্তারা। পাশাপাশি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর চেয়ার ভেঙ্গে দেওয়ার মতো সরকার বিরোধী মন্তব্য করা হয় সমাবেশ থেকে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের টিসি দেওয়ার মতো মিথ্যাচারও ছড়ানো হয় সেখান থেকে। ছাত্র ইউনিয়নের এক নেতা স্কুল-কলেজ ঘেরাও করে পরিস্থিতি বিভৎস করে দেওয়ারও হুমকি দেন। পাশাপাশি ছাত্রলীগের নামে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য উপস্থাপন করে উপস্থিত জনতাকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেন এক নেতা।

তারেক রহমানের উস্কানিতে ছাত্র ইউনিয়নের এমন সরকার ও রাষ্ট্র বিরোধী বক্তব্য নিয়ে জনমনে শঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। কোমলমতি ছাত্রদের ন্যায্য ও যৌক্তিক দাবিকে রাজনীতিকরণ করে সুবিধা আদায় করতে ছাত্র ইউনিয়নের ঘৃণ্য পায়তারাকে শুধুই নোংরামী বলেও অভিমত প্রকাশ করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা।