আওয়ামীলীগ সেক্রেটারি”র বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে লক্ষলক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

আমির হোসেনঃ-

নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জ মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ আবদুল্লার বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করছে এলাকার ভুক্তভোগীরা,এলাকার ভুক্তভোগী পরিবারগুলো আওয়ামীলীগ সেক্রেটারি শেখ আবদুল্লা এধরনের অনিয়ম কর্মকাণ্ডে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠছে।

ভুক্তভোগীদের একজন মুছাপুর ইউনিয়ন ৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল হক, সে জানান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি শেখ আবদুল্লা আমার বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে টাকা লাগবে বলে আমার থেকে ২০১৪ সালে বিশ হাজার টাকা নেই কিন্তুু সে আমার বাড়ীতে তখন বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে পারেনি কিন্তু দীর্ঘদিন পর আমরা শেখ হাসিনা সরকারের শতভাগ বিদ্যুৎ আয়নের প্রকল্পের আওতায় বিদ্যুৎ পেয়েছি ।

এখন শেখ আবদুল্লার কাছে আমার টাকাগুলো ফেরত চাইলে সে আমাকে হুমকি ধুমকি দিচ্ছে ,সে যদি আমার টাকা ফেরত না দেয় আমি প্রয়োজনে বিষয়টি মন্ত্রী এলাকায় আসলে জানাবো।

এছাড়া একি অভযোগ করে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুর নবী বলেন আমি আমেরিকা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং মুক্তি যুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করি শেখ আবদুল্লাহ এবং আমি একি এলাকায় বসবাস করি আমি আমেরিকা থাকা অবস্থায় শেখ আবদুল্লাহ আমার বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে পিলার ও মিটার জন্য খরচ লাগবে বলে আমার পরিবার ও ছেলে থেকে চল্লিশ হাজার টাকা নেন।

এদিকে মুছাপুর ইউনিয়নের মোবারক আলী বাড়ীর মোবারক আলীর ছেলে আতিক উল্লাহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি শেখ আবদুল্লাহ বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন সে আমাদের থেকে বিদ্যুৎ সংযোগের কথা বলে দশ হাজার টাকা নেন।

এছাড়া একি অভিযোগ করে রফিক উল্লার ছেলে নুর উদ্দিন বলেন আওয়ামীলীগ সেক্রেটারি শেখ আবদুল্লাহ শুধু আমাদের থেকে নয় এভাবে ৬০-৬৫ পরিবার থেকে ১০/১৫ হাজার টাকা করে নিয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ দিবে, সরকার যেহেতু বিনা টাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ দিচ্ছে এখন আমাদের  টাকা আমরা ফেরত চাই।

এ বিষয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি শেখ আবদুল্লাহ সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে সে প্রতিবেদককে বলেন এগুলো সত্য নয় এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচার।