ফেনীর সোনাগাজীতে আশ্রয় নেয়া ১৩ রোহিঙ্গাকে কক্সবাজারের কুতুপালং ক্যাম্পে ফেরত

দৈনিক দৃষ্টান্ত রিপোর্ট : ফেনীর সোনাগাজীর চর সাহাভিখারী গ্রামে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে মৃত্যু ভয়ে পালিয়ে এসে আশ্রয় নেয়া ৭ শিশুসহ ১৩ রোহিঙ্গা সদস্যকে বুধবার সন্ধ্যায় ফেনী জেলা প্রশাসন কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রেজিস্টার্ড ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হয়েছে।
ফেনী জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায় এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সোনাগাজীর চর সাহাভিখারী গ্রামে আশ্রয় নেয়া ১৩ জন মিয়ানমারের রোহিঙ্গাকে পুলিশ হেফাজতের মাধ্যমে কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রেজিস্টার্ড ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হয়েছে।
ফেনী জেলা প্রশাসন, স্থানীয় এলাকাবাসী ও পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৯৯২ সালে মিয়ানমার থেকে আনোয়ার হোসেন বাংলাদেশে এসে চট্টগ্রামে একটি পোষাক কারখানায় চাকুরি নেয়। সে সুবাদে সোনাগাজীর চর দরবেশ ইউনিয়নের চর সাহাভিখারী গ্রামের মাতব্বর বাড়ির রিক্সা চালক আবদুর রশিদের মেয়ে শিউলি আক্তারের সাথে পরিচয় হয়। পরে তাদের বিবাহ হয়। সে আতœীয়তার বন্ধনে রোহিঙ্গা পরিবারটি এখানে এসে আশ্রয় নেয়।
১৩ সদস্য পরিবারের অভিভাবক মোহাম্মদ জাফর আহম্মদ জানান, তার দুই যুবতী মেয়েকে বৌদ্ধরা গুলি ও কুপিয়ে হত্যা করেছে। আরেক মেয়ের কোনো খোঁজ-খবর পাননি। জঙ্গল, নদী ও পাহাড় অতিক্রম করে ১৪ দিন পর বাংলাদেশে এসেছেন তারা জীবন বাঁচাতে। বাংলাদেশে এসে নতুন প্রাণ পেয়েছেন।
চর দরবেশ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম ভুট্টো জানান, মানবিক দিক বিবেচনায় তাদের থাকতে দেয়া হয়েছিল। জেলা প্রশাসনের নির্দেশে আবার ফেরত পাঠানো হচ্ছে।
সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, চর সাহাভিখারী গ্রামে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদেরকে বুধবার সন্ধ্যায় কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হয়েছে। তাদের সাথে ৩ জন পুলিশ সদস্য রয়েছে।
ফেনী জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায় জানান, ফেনীর সোনাগাজীর চর সাহাভিখারী গ্রামের আবদুর রশিদের বসতবাড়ীতে আতœীয় সূত্রে আশ্রয় নেয়া ১৩ জন মিয়ানমারের রোহিঙ্গাকে পুলিশ হেফাজতের মাধ্যমে কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রেজিস্টার্ড ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হয়েছে।